১২ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পাচ্ছে ব্রাত্য বসুর ‘ডিকশনারি’

১২ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পাচ্ছে ব্রাত্য বসুর ‘ডিকশনারি’
ব্রাত্য বসু

নিজস্ব প্রতিনিধি:প্রায় ১০ বছর পর ছবির পরিচালনায় ফিরলেন রাজ্যের মন্ত্রী,বিশিষ্ট নাট্যকার ব্রাত্য বসু । এর আগে তিনি ‘রাস্তা’,’তিস্তা’ ও ‘তারা’ পরিচালনা করেছিলেন।’ডিকশনারি’ তাঁর পরিচালিত চতুর্থ ছবি।ইতিমধ্যে ছবির ট্রেলার প্রকাশ পেয়েছে।ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে ১২ ফেব্রুয়ারি। সম্পর্কের নতুন সমীকরণ ও নানা দিক ফুটে উঠেছে সদ্য প্রকাশ্যে আসা ছবির ট্রেলারে।

নুসরত জাহান

বুদ্ধদেব গুহ’রদুটি ছোট গল্প ‘বাবা হওয়া’ এবং ‘স্বামী হওয়া’ নিয়ে ‘ডিকশনারি’র কাহিনি। ‘বাবা হওয়া’ গল্পে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেছেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেতা মোশারফ করিম। এছাড়াও তাঁর সঙ্গে দেখা যাবে পৌলমী বসুকে। ‘স্বামী হওয়া’ গল্পের মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন নুসরত জাহান ও আবির চট্টোপাধ্যায়। ‘অসুর’ ছবির পর আরও একবার ‘স্বামী’-স্ত্রীর ভূমিকায় নুসরত ও আবির।এছাড়াও রয়েছেন মধুরিমা বসাক, অর্ণ মুখোপাধ্যায়, ফাল্গুনী চট্টোপাধ্যায় সহ আরও অনেকে।

আবির চট্টোপাধ্যায়


এই ছবিতে আবির, অশোক সান্যালের চরিত্রে অভিনয় করেছেন। পুরুলিয়া বন বিভাগের আধিকারিক তিনি। স্ত্রী- কন্যা নিয়ে সরকারি বাংলোতে থাকেন। পরিবারের প্রতি দায়িত্বশীল।আচার-ব্যবহার পরিমার্জিত, রুচিমান এবং স্বভাবে বিষণ্ণ অন্তর্মুখী। অন্যদিকে নুসরত অভিনয় করেছেন স্মিতা সান্যালের চরিত্রে। পুরুলিয়া বন বিভাগ আধিকারিক অশোকের স্ত্রী সে। স্বামী আর এক মেয়ের সঙ্গে সরকারি বাংলোয় থাকেন। পুরুলিয়ার রুক্ষতা বা নির্জনতা কিংবা হয়তো বন্ধুর অভাবেই সংসারের প্রতি কিছুটা উদাসীন। স্বভাবে একেবারে যেন ছেলেমানুষ সে।
এলো চুল, সাদামাঠা শাড়িতে এ যেন অচেনা নুসরত‌। চোখে মুখে ফুটে উঠছে এক চাপা বেদনা। আবিরের পরনে সাদা পাজামা পাঞ্জাবি, চোখে কালো ফ্রেমের চশমা, একেবারে গুরু গম্ভীর। স্ত্রীয়ের চেয়ে বয়সের তফাৎ অনেকটাই। প্রথমে মোরামের রাস্তা ধরে দুজনের খুনসুটি ধরা পড়লেও, ধীরে ধীরে সম্পর্কের বাঁধনের সুতোটাও যেন অনেকটা আলগা হয়েছে।

ব্রাত্য বসুর সঙ্গে নুসরত ও আবির

আলগা হওয়া সুতোর ফলস্বরূপ পর পুরুষের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন পর্দার ‘অসুখী’ নুসরত। তাই কখনও আবার তাঁকে ‘ডাইনি’ আখ্যাও পেতে হয়। সম্পর্কের ভিন্ন সমীকরণ ও দিক ফুটে উঠেছে ছবির ট্রেলারে। বিভিন্ন দৃশ্য দেখেই মনে জাগবে একাধিক প্রশ্ন। তবে রহস্যভেদ হবে সম্পূর্ণ ছবিটি দেখার পর।
কলকাতা সহ বোলপুর, শান্তিনিকেতনে শ্যুটিং হয়েছে ছবির বেশির ভাগ দৃশ্য। প্রথমে ২০২০-র মার্চে শ্যুটিং শুরু হয়েছিল ‘ডিকশনারি’র। তবে এরপর লকডাউনের জেরে বন্ধ হয়ে যায় শ্যুটিং। আবার আনলক পর্বে একে একে শেষ হয় ছবির সব কাজ। ফ্রেন্ডস কমিউনিকেশন প্রযোজিত, ফিরদাউসুল হাসান এবং প্রবাল হালদার নিবেদিত এই ছবি দর্শকের মন কাড়বে বলে আশা সকলের।
নুসরত জাহান জানালেন,”মানবসম্পর্কের রহস্যের কথাই এখানে সহজভাবে বলা হয়েছে।চরিত্রটা করার সময় আমি একদম স্মিতাই হয়ে গেছিলাম।চরিত্রটা নিয়ে আমি খুব আশাবাদী।ব্রাত্য বসুর পরিচালনায় এরকম একটা চরিত্র করতে পেরে আমার নিজের খুব ভালো লাগছে।”

ছবি:বিশ্বজিত সাহা

admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *