সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় এর স্মৃতি, বড়ো বেদনাময়

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় এর স্মৃতি, বড়ো বেদনাময়

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের স্মৃতিচারণায় নাড়ুগোপাল মণ্ডল

অনেক বড়ো শিক্ষক কে হারালাম। সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় এর সাথে প্রথম কাজ করার সুযোগ পেয়েছিলাম ” রঙ বে রঙ” ছবিতে ববিদার সাহায্যে। আজো স্পষ্ট মনে আছে। পরিচালক গৌতম সাতভায়া’র নির্দ্দেশে আমার দায়িত্ব পড়লো সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় কে স্ক্রিপ্ট পড়ানোর। বুকের মধ্যে ভয় তো ছিলোই। কিভাবে পড়াবো ! ভাবছি। আর উনি নিজেই বলে উঠলেন – পড়ো… আমি পড়া শুরু করলাম। একটু অভিনয়ের সুরে পড়তে থাকলাম। বলতে দ্বিধা নেই,তখন আমার জানা ছিল না। উনি বাধা দিয়ে বললেন – শোনো , তুমি শুধু সংলাপটা পড়ে শোনাও। কিভাবে সংলাপ বলতে হবে ওটা আমার ওপর ছাড়ো। একটুও রাগ না করে এতো সুন্দর ভাবে কথাটা বললেন, ও বোঝালেন, মনে হলো যেন আমি উনার বহু পূর্ব পরিচিত। তারপর এই কয়েক বছরে অনেক গুলো ছবিতে উনার সাথে কাজ করার সুযোগ পেয়েছি। আমার পরিচালনা ছাড়াও বিভিন্ন পরিচালক এর ছবিতে ক্রিয়েটিভ ও টেকনিক্যাল ডিরেক্টর হিসেবে কাজ করার সুযোগ পেয়েছি। অন্যতম ছবি গুলোর মধ্যে “শেষ চিঠি”, “জোনাকী”, ” স্বপ্ন সন্ধানী “, তুই আমার”, ” স্বপ্ন সন্ধানী ২”, “নষ্ট পুরুষ”, “সিক্রেট লাভ স্টোরি”, “ভ্যালেনটাইনস ডে”, “আন কাট”, ” রকস্টার বিনি “, ” অবলম্বন “….. প্রতিটি ছবিতে কাজের মাঝে গল্প আড্ডা তো ছিলো ই। বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হতো। আর প্রেরণা।সেজন্য নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করি। সে সুযোগ আর পাবো না। আমি উনার সাথে ছবিতে অভিনয়ও করেছি। একটা কথা না বলে পারছি না, ” নষ্ট পুরুষ ” ছবির শুটিং চলছে, একটা শট ছিলো, সৌমিত্র বাবু (বাবা) তার ছেলে কে চড় মেরে চলে যাওয়ার পর অভিমানে রেগে নিজের ঘরের দরজা বন্ধ করবেন। উনি শট দিলেন। ঐ ছবির পরিচালক আমি ও নির্মাল্য চক্রবর্তী (ববিদা)। শটটা হয়ে যাওয়ার পর উনি চেয়ারে গিয়ে বসলেন। আমি ও ববিদা আলোচনা করছি, শটটা আর একবার নিলে ভালো হয়। কিন্তু ওনাকে বলবে কে ❓শেষ পর্যন্ত আমি কাছে গিয়ে বিনয়ের সুরে বললাম – যদি আর একবার শটটা দেন তো ভালো হয়। সত্যি বলতে , তখন সাহস ই ছিল না। উনি বললেন – কিন্তু কিন্তু করছো কেন, তোমরা পরিচালক,, ছবিটা তোমাদের, যতবার চাইবে দেব। ইউনিটের সবাই অবাক ! সত্যি কথা বলার সাহস, আর সময় জ্ঞান উনার মতো কম মানুষ দেখলাম।
আমার সাথে উনার শেষ ছবি ” অবলম্বন “। আরও অনেক কাজের পরিকল্পনা ছিল, তা আর হলো না। অসুস্থ হওয়ার কিছু দিন আগে ” অবলম্বন ” এর ডাবিং এ এসে সবার সাথে কতো গল্প করে গেলেন! ভাবতে পারছি না, উনি নেই! উনার আত্মার শান্তি কামনা করি।

admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *