পারমিতা মুন্সীর শর্টফিল্ম ‘ভালোবাসা পজেটিভ’

0
156

By Ramiz Ali Ahmed

সুখের সংসার দয়িতার। সে তার স্বামী সুমন শাশুড়ি অনিমা এই তিনজনের ছোট্ট পরিবার । মাত্র দু’বছর বিয়ে হয়েছে সন্তানাদি হয়নি। তবে মনে হয় খুব শিগগিরই সে তার বাড়ির লোককে সুখবর জানাতে পারবে। সন্তান না হওয়ার নিয়ে শাশুড়ির মনে তার সম্পর্কে সামান্য উষ্মা রয়েছে, তা ছাড়া শাশুড়ি মানুষটা মোটের ওপর ভালোই। দায়িতার বর সুমন, সুমন এর মত ভদ্র ,শান্ত কেয়ারিং,মানুষকে স্বামী হিসেবে পেয়েছে জীবন ধন্য হয়ে গেছে দায়িতা। সেই অর্থে সাধারণের একটু বেশি বয়সে তার বিয়ে হয়েছিল কিন্তু স্বামী সুখ তার জীবনে সব পুষিয়ে দিয়েছে। সবে জীবনটাকে ডানা মেলে উপভোগ করতে শুরু করেছে দায়িতা, তারব মধ্যেই এই প্যানডেমিক করোনা সব লণ্ডভণ্ড করে দিল। আজ দায়িতার শ্রাদ্ধ ,মারণ রোগে মারা গেছে সে। মারা গেছে বললে ভুল বলা হবে। সে আত্মহত্যা করেছে , হাসপাতালের ছাদ থেকে ঝাঁপ দিয়ে। বিয়ের পর প্রথম বছরে মিসক্যারেজ হয়। তারপর আবার সন্তান এসেছিল তার গর্ভে, বাড়ির কাউকে সে সুখবর দেওয়ার আগেই তার করোনা ধরা পড়ে। তার করোনা তার গর্ভস্থ সন্তানের যদি ক্ষতি করে এমন একটা মিসকনসেকশানে সুসাইড করে দায়িতা। দায়িতার দাদা পুলিশ অফিসার দেবায়ন তার পোস্টমর্টেম এ করোনার ও কনসিভ করার কথা জানতে পারে। শ্রাদ্ধের দিন বাড়ি এসে তা জানায় বাকি সবাইকে । দায়িতার বাড়ির বাকি সবাই করোনা নেগেটিভ ধরা পড়েছে।তারপর ? কি হয় দায়িতার সংসারের?

ভালোবাসা, সংসারের পিছুটান এমন এক অবিচ্ছেদ্য বন্ধন মৃত্যুর পরও তা থেকে যায়। ভালোবাসা থেকে যায় মৃত্যুর পরেও…সেই কথাই বলে পারমিতা মুন্সীর শর্টফিল্ম ‘ভালোবাসা পজেটিভ’।


২০ মিনিটের এই শর্টফিল্মে অভিনয় করেছেন দেবলীনা দত্ত মুখার্জি (দয়িতা),দেবদূত ঘোষ(সুমনদয়িতার স্বামী ),সুতপা ব্যানার্জি- অনিমা (দয়িতার শাশুড়ি মা),দেবজিৎ কুণ্ডু – পুলিশ অফিসার(দয়িতার দাদা ),ইন্দ্রাণী ঘোষ – রত্না (দয়িতার মামী শাশুড়ি মা)।কাহিনি,চিত্রনাট্য ও সংলাপ পরিচালকেরই।সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন অভিমন্যু চট্টোপাধ্যায়,কন্ঠ দিয়েছেন মিতুল দত্ত।নৃত্য পরিচালনা করেছেন ইন্দ্রাণী গঙ্গোপাধ্যায়।চিত্রগ্রহণ করেছেন অশোক প্রামানিক।শিবানী মুন্সী প্রোডাকশন নিবেদিত শর্টফিল্মটির প্রযোজনা করেছেন সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here