বেলেঘাটা ঈক্ষণ আয়োজিত “ছোটদের নাট্য কর্মশালা”

বেলেঘাটা ঈক্ষণ আয়োজিত  “ছোটদের নাট্য কর্মশালা”

গোপাল দেবনাথ : কলকাতা, ২, অক্টোবর, ২০২০: গত বছর ডিসেম্বর মাস থেকে শুরু হয়েছে করোনা ভাইরাসের মহামারী। চীন দেশ থেকে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাস। কোটি কোটি মানুষ এই রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছেন। প্রায় ২০০ দিন হতে চলেছে আমাদের দেশ তথা আমাদের রাজ্যের সাধারণ মানুষ প্রায় গৃহবন্দি। সবে আনলক -৪ চলছে মানুষ বাড়ির বাইরে রুজির টানে প্রতিনিয়ত বের হচ্ছেন। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আজও খোলে নি, কবে খুলবে কেউ জানে না। বাড়ির ছোটদের অবস্থা খুবই করুন। বাড়ি থেকে অনলাইন এ পড়াশুনা, পরীক্ষা চললেও খেলাধুলা বিনোদন সবই বন্ধ। এই সব ছোট শিশু কিশোরদের কথা চিন্তা করে আজ জাতির জনক মহাত্মা গান্ধীর জন্মজয়ন্তী র শুভ দিনে পশ্চিমবঙ্গ নাট্য আকাদেমির সহায়তায় ‘বেলেঘাটা ঈক্ষণ’ কতৃপক্ষ আয়োজন করেছেন ৮ -১৩ বছর বয়সের ‘ছোটদের নাট্য কর্মশালা’ শতাব্দী প্রাচীন বেলেঘাটা সুবারবন রিডিং হল এর ঝা চক চকে পরিবেশে। এই কর্মশালা চলবে আগামী ৪ ঠা অক্টোবর পর্য্যন্ত। আজকের এই নাট্য কর্মশালার প্রদীপ জ্বালিয়ে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন শ্রী জয়ন্ত কুমার বসু। এ ছাড়াও এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কর্মশালা পরিচালক রাষ্ট্রীয় নাট্য বিদ্যালয় প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত শ্রী দিব্যেন্দু দাস। নৃত্য বিশেষজ্ঞ ও অধ্যাপিকা শ্রীমতি সুস্মিতা দাস এবং প্রাবন্ধিক, নাটককার ও নির্দেশক শ্রী অভি চক্রবর্তী। ছোটদের নাট্য কর্মশালার বিষয়বস্তু ছিলো ছন্দের দ্বারা শরীরচর্চা, ব্যক্তিত্ববিকাশ, স্বরচর্চা, কারুচর্চা এবং অভিনয়ের প্রথম পাঠ। প্রতিদিন এই কর্মশালা চলবে দুপুর ৩টে থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্য্যন্ত। আজকের প্রথম দিনের কর্মশালায় গিয়ে দেখা গেল গোটা ১৪ জন ছোট ছেলে মেয়ে বাড়ির বাইরে বেরোনোর আনন্দ তাদের চোখে মুখে ঝরে পড়ছে। প্রথমে তাদের একটি বড় হল ঘরের মধ্যে দূরত্ব বজায় রেখে গোল করে বসিয়ে আঁকার কিছু পাঠ নিচ্ছেন তাদের প্রশিক্ষক। একটু বিরতি তার পরেই শুরু হলো স্কুলে থাকাকালীন বৃষ্টি হলে এবং দেরি হওয়ার পর অভিভাবক স্কুলে পৌঁছতে না পারলে ছাত্রছাত্রীদের অনুভূতি কি হবে এই নিয়ে প্রশিক্ষণ চললো। পরিবেশ ফুটিয়ে তুলতে বৃষ্টির নানা ধরণের আওয়াজ, সেই সময় কর্মশালার বাইরেও বৃষ্টির আওয়াজ শুনতে পাওয়া গেল। শিক্ষার্থীরাও তাদের অনুভূতি ফুটিয়ে তোলার যথাসাধ্য চেষ্টা করতে দেখা গেল। আজ ২রা অক্টোবর প্রশিক্ষক অভি চক্রবর্তী শেখালেন ‘ব্যক্তিত্বের বিকাশ’ এরপর সুস্মিতা দাস শেখালেন ছন্দের দ্বারা শরীরচর্চা। ছোট ছেলেমেয়েদের উৎসাহ ছিল নজর কাড়া। ৩রা অক্টোবর নাটককার, নির্দেশক – ইফটা (কলকাতা) দেবাশিষ দত্ত শেখাবেন থিয়েটারের কারুচর্চা। ছোটদের স্বরচর্চা শেখাবেন আবৃত্তিকার, অভিনেত্রী ও নির্দেশিকা থিয়েলাইট এর শম্পা দাস সরকার। নাট্য কর্মশালার শেষদিন অর্থাৎ ৪ঠা অক্টোবর অভিনয়ের প্রথম পাঠ শেখাবেন অভিনেতা, নাটককার ও নির্দেশক থিয়ে লাইট এর অতনু সরকার। ছোটদের নাট্য কর্মশালাটি অত্যন্ত দক্ষতার সাথে পরিচালনা করছেন দিব্যেন্দু দাস। এই তিনদিনের কর্মশালায় সামগ্রিক ভাবে সঞ্চালনা করবেন শুভঙ্কর কাঞ্জিলাল।

admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *