*Help My Daughter Raise Funds To Recover From Neuro Cerebral Palsy*https://www.impactguru.com/fundraiser/help-alisha-islam
Home Blog

পুজোর নানাবিধ পেট পুজোর অনবদ্য আয়োজন নিয়ে হাজির সল্টলেকের গোল্ডেন টিউলিপ হোটেল

0

নিজস্ব প্রতিনিধি:পুজো এলে বাঙালির ভোজন ভজনা যেন দশগুণ বেড়ে যায়। সেকথা খেয়াল রেখেই বেশ কিছু বছর ধরে বিভিন্ন হোটেল রেস্তোরাঁ ভুরিভোজের আয়োজন করে। পিছিয়ে নেই সল্টলেক সিটি সেন্টার সংলগ্ন গোল্ডেন টিউলিপ হোটেল। গোল্ডেন টিউলিপ হোটেলের জেনেরাল ম্যানেজার সুমন্ত মাইতি জানালেন, দুবছর করোনায় গৃহবন্দী থেকে মানুষ এখন মুক্তির স্বাদ পেয়েছে। মনের সঙ্গে দেহের যেমন সম্পর্ক আছে, তেমন মনের সঙ্গে খাদ্যেরও এক বিশেষ সম্পর্ক আছে। চোব্য চোষ্য লেহ্য পেয় এই চার রসের আরকে মন ভিজলেই তো চরম প্রাপ্তি। শারদীয় উৎসবে সামিল হয়ে গোল্ডেন টিউলিপ  ২ অক্টোবর থেকে ৪ অক্টোবর আয়োজন করেছে এক ব্যাপক ভুরিভোজের আসর। হোটেলের তিন তিনটি রেস্তোরাঁয় থাকছে বিশেষ আয়োজন। তিনতলায় অ্যান্টিপাস্তিতে থাকছে সাবেকি বাঙালি খাদ্যের সঙ্গে কিছু ভারতীয় খাবারের যুগলবন্দী। মাল্টি ক্যুইজিন রেস্তোরাঁ নোয়ার এও থাকছে এলাহি আয়োজন।

জালাপেনো চিজ ফ্রিটার্স, ক্রিসপি চিজি চিকেন ফিলে, পিজা পাস্তা, বেকডডিশ তো থাকছেই সঙ্গে তন্দুরি কাবাবের মেলা আয়োজন। হোটেলের ৮ তলায় খোলা আকাশের নিচে স্কাই লাউঞ্জে পাবেন নিজের পছন্দের খাবার, মকটেল ও হুক্কা বিভিন্ন ফ্লেবারের।

জন প্রতি মাত্র  ৯৯৯/- টাকায় ব্যুফেতে থাকছে দুপুর ও রাতের খাবারের দীর্ঘ তালিকা। বেলা ১২ টা থেকে সাড়ে ৩ টে ও রাতে ৭ টা থেকে ১২ টা পর্যন্ত আপনাদের আপ্যায়নে হাজির। বাঙালি খানায় সাবেকি আলু পোস্ত থেকে পোলাও রাজনন্দিনী, কড়াইশুঁড়ির কচুরি থেকে নারকেল ছোলার ডাল থাকছে। থাকছে পুজোর চারদিনে ভিন্ন ভিন্ন মেনু। কমলা লেবুর সরবত, তরমুজের শরবত তো আছেই। আছে আম পান্না। কাঁচা আমের চপ, মাছের কাটলেট, হাঁসের ডিমের ডেভিল, চিংড়ি পুরের কাঁকরোল, মৌরলা মাছের পেঁয়াজি।

বিভিন্ন শাক ভাজা, আলু মুরগির কষা, সর্ষে পাবদা, দই মুরগি, শিলে বাটা চিংড়ি ভাপা, চিকেন ডাকবাংলো, চিতল মুইঠঠা তো থাকছেই। এবার বিশেষ ভাবে থাকছে ইলিশ ও চিংড়ি মাছের বিভিন্ন পদ । গোটা চিকেন রোস্ট ও মার্টন রাঙ্। থাকছে মিক্সড ফ্রুট চাটনি, ডিসকো পাঁপড়। যা আপনার মেজাজকে বানিয়ে তুলবে মোঘল রাজাদের মত। সঙ্গে কিছু দেশি বিদেশি ফিউশন খাবারও থাকবে আজকের প্রজন্মের চাহিদা মেটাতে ।

ZEE5SARADINERSANGEE প্রচারাভিযানের মাধ্যমে মা দূর্গাকে দুনিয়াজুড়ে লক্ষ লক্ষ পরিবারের কাছে ভার্চুয়ালি এনে দিচ্ছে ZEE5

0

  • ZEE5, দুর্গা পুজোর ৫-দিন মা দুর্গার ভক্তদের কাছে ৬৬ পল্লি, ৯৫ পল্লি, শিব মন্দির, বেহালা নতুন দল সহ ৮০ টিরও বেশি প্যান্ডেল এর পুজো সরাসরি লাইভস্ট্রিম এর মাধ্যমে পৌঁছে দিচ্ছে, যাতে দর্শকরা তাদের বাড়ি বসেই উত্সবের আনন্দ উপভোগ করতে পারেন
  • সম্প্রতি এই প্ল্যাটফর্মে ব্লকবাস্টার বাংলা ছবি, ‘অপরাজিত – দ্য আনডিফিটেড’ মুক্তি পেয়েছে। এছাড়াও, শিকারপুর, রক্তকরবি, শ্বেতকালি, কাঁটাই কাঁটাই এর মতো ওরিজিন্যালস এবং হাবজি গাবজি, ধর্মযুদ্ধের মতো সিনেমা এবছর প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পেতে চলেছে
    ভারত এবং ইন্ডিয়ার সবথেকে বড় ঘরোয়া ভিডিও স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম এবং লক্ষাধিক মনোরঞ্জন প্রেমীদের জন্য বহুভাষিক কাহিনীকার হিসাবে জনপ্রিয় ZEE5, দর্শকদের সঙ্গে দেশের অন্যতম সবচেয়ে বড় হিন্দু উৎসব, দুর্গা পুজোর উদযাপনের জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত। এই দুর্গোৎসবে, প্ল্যাটফর্মটি মা দুর্গাকে সারা বিশ্বের লক্ষ লক্ষ বাড়িতে পৌঁছে দিচ্ছে ফলে দর্শকরা দূর থেকেই পুজোর সকল আচার-অনুষ্ঠান উপভোগ করতে পারবেন। এখন তারা নিজেদের বাড়ির স্বাচ্ছন্দ্য থেকেই ভার্চুয়ালি ৪০ টিরও বেশি বিখ্যাত প্যান্ডেলের জাঁকজমক প্রত্যক্ষ করতে পারবেন। ZEE5, কলকাতা এবং ভারতের অন্যান্য বড় শহরগুলির সেরা এবং সবচেয়ে জনপ্রিয় কিছু প্যান্ডেলগুলি থেকে পুজোর লাইভস্ট্রিম করবে।
    বিনোদনকে সকলের কাছে পৌঁছে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি পূনর্ব্যক্ত করে, প্ল্যাটফর্মটি দর্শকদের সম্পূর্ণ বিনা খরচে পুজো দেখার সুযোগ করে দিচ্ছে। ভার্চুয়াল মাধ্যমে প্যান্ডেল ঘুরে দেখা ছাড়াও দর্শকরা কলা বৌ স্নান, পুষ্পাঞ্জলি, সন্ধি পুজো, কুমারী পুজো, এবং দশমীর দেবি বরণ ও সিঁদুর খেলার মতো নানা রীতি প্রত্যক্ষ করার সুযোগ পাবেন। এই তালিকায় যে কয়েকটি বিখ্যাত প্যান্ডেল রয়েছে তার মধ্যে কয়েকটি উল্লেখযোগ্য হলো, ৬৬ পল্লি, ৯৫ পল্লি, শিব মন্দির, বেহালা নতুন দল, শ্রীভূমি, সন্তোষ মিত্র স্কোয়ার, এবং চেতলা অগ্রণী। উৎসবের মেজাজকে আরো বাড়িয়ে তুলতে, ZEE5, একটি ৩৬০-ডিগ্রী ক্যাম্পেন #ZEE5SaradinerSangee র পরিকল্পনা করেছে। এর মাধ্যমে শুধুমাত্র যে গোটা দুনিয়ার মানুষের কাছে দুর্গা পুজোর আমেজ পৌঁছে যাবে তাই নয়, এই প্ল্যাটফর্মে আরো বেশি সংখ্যক বাংলা কন্টেন্ট যুক্ত করবে । ক্যাম্পেন ভিডিওতে দেখা যাবে কিভাবে ZEE5 দর্শকদের সর্বক্ষনের সঙ্গী হিসাবে তাদের কাছে উন্নত মানের কন্টেন্ট যে কোন সময়, যে কোন স্থানে পৌঁছে দিচ্ছে।
    ক্যাম্পেনের বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে, অভিরুপ দত্ত, হেড- AVOD মার্কেটিং, ZEE5 ইন্ডিয়া বলেন, “ZEE5 এর জন্য পূর্ব ভারত অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বাজার, কাজেই এই অঞ্চলের মানুষের জন্য আমরা নানা ধারার টিভি কন্টেন্ট আর এক্সক্লুসিভ শো নিয়ে এসেছি। আমাদের ক্যাম্পেন #ZEE5SaradinerSangee এর সঙ্গে, সারা বিশ্বের কোটি কোটি মানুষের কাছে দুর্গা পুজোর আনন্দ, উৎসাহ, জাঁকজমক আর প্রাচীন রীতি নীতি তুলে ধরার জন্য লাইভ স্ট্রিমিং করা হচ্ছে। দুর্গা পুজো, বিশ্ব মানচিত্রে কলকাতার সমৃদ্ধ ঐতিহ্যের পরিচয়বাহক আর ১৯০টির বেশি দেশে উপস্থিত ব্র্যান্ড হিসাবে ZEE5 এর এক্সকুসিভ নানা উদ্যোগের মাধ্যমে সারা বিশ্বের বাঙালিদের একত্রিত করার লক্ষ্যেই আমাদের এই প্রয়াস ”।

লক্ষী কাকিমা খ্যাত জনপ্রিয় অভিনেত্রী, যিনি বাংলা চলচ্চিত্রের পাশাপাশি বলিউডেও তার কাজের জন্য পরিচিত, সেই অপরাজিতা আঢ্যি বললেন, “আমার কাছে দুর্গা পুজো সবসময়ই চার দিন আনন্দ এবং উত্সবের মধ্যে নিজেকে ডুবিয়ে রাখা। চার দিন ধরে নানা রকমের শাড়িতে সাজগোজ, প্রিয়জন বেষ্টিত হয়ে, সুস্বাদু নানা খাবার…আমার কাছে পুজো এটাই, আর বলতে গেলে সবার কাছেই। একটা সময় ছিল যখন প্যান্ডেলে প্যান্ডেলে খুব ঘুরে বেড়াতাম, কিন্তু সেই বিলাসিতা আর করার সুযোগ হয় না, সেই জন্যেই আমি এই বছর ZEE5 এর সঙ্গে পুজোর লাইভ স্ট্রিমিংয়ের জন্য উন্মুখ।প্রিয় সব খাবার দাবার আর বাড়ির আত্মীয় স্বজনদের সঙ্গে আড্ডার মধ্যেইই লাইভ স্ট্রিমে পুজো দেখা একেবারে জমে যাবে। সবার সুখ, শান্তি ও ভালোবাসা কামনা করছি”।

এই পথ যদি না শেষ হয় খ্যাত আরেকজন অত্যন্ত পরিচিত বাঙালি অভিনেত্রী অন্বেষা হাজরা বললেন, “আমার মনে হয় না বাঙালি দুর্গা পুজোর মতো আর অন্য কিছুর জন্য এতো অধীর আগ্রহে বসে থাকে। পারিবারিক পুজোর কারণে আমার কাছে দুর্গোৎ মানেই পুরোপুরি বাড়িতেই থাকা। পুজোর চারদিন বাড়িতেই প্রিয়জন বেষ্টিত হয়ে, আমার বর্ধিত পরিবারের সঙ্গে আনন্দে কেটে যায়। কাজেই, আমাদের প্যান্ডেলে প্যান্ডেলে ঘোরাটা আর হয়ে উঠে না। ঠিক এই জায়গা থেকেই ZEE5 এর পুজো লাইভ স্ট্রিম করার চিন্তাভাবনাকে আমি সাধুবাদ জানাই! বাড়িতে বসেই পুরো শহরকে উৎসবের আনন্দে মেতে উঠতে দেখার জন্য আমরা সকলেই উদগ্রীব। আমি সকলকে সুরক্ষিত এবং আনন্দময় পুজোর শুভেচ্ছা জানাই”।

উন্নত মানের কন্টেন্টের জন্য এই অঞ্চলের মানুষের আকাঙ্ক্ষার কথা মাথায় রেখে, ZEE5 সম্প্রতি তাদের প্ল্যাটফর্মে ২০২২ সালের সবচেয়ে বড় বাংলা ব্লকবাস্টার, ‘অপরাজিত – দ্য আনডিফিটেড’ প্রকাশ করেছে। ফিরদৌসুল হাসান এবং প্রবাল হালদার প্রযোজিত এই চলচ্চিত্রটি বিশিষ্ট চলচ্চিত্র নির্মাতা সত্যজিৎ রায়ের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন এবং আন্তর্জাতিক ক্লাসিক পথের পাঁচালী নির্মাণের পথে তাঁর সংগ্রামকে ফুটিয়ে তোলে। এর সঙ্গেই, শিকারপুর, রক্তকরবি, শ্বেতকালি, কাঁটাই কাঁটাই এর মতো ওরিজিন্যালস এবং হাবজি গাবজি, ধর্মযুদ্ধের মতো সিনেমা এবছর প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পেতে চলেছে। এছাড়াও শ্রীমতি, মহালয়া, কলকাতার হ্যারি, টনিক, আমাদের এই পথ যদি না শেষ হয়, লক্ষ্মী কাকিমা সুপারস্টার, মিঠাই, পিলু, গৌরি এলো-এর মতো জনপ্রিয় অনুষ্ঠানগুলিও চলতি বছরেই এই প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পেতে চলেছে, থাকছে গোয়েন্দা গিন্নী, দাদাগিরি র মতো অনেক জনপ্রিয় লাইব্রেরি শো।

Licious Reinstates Its Commitment to Regional Consumers with The Durga Pujo Campaign

0

  • Teams up with actor Parambrata Chattopadhyay for the 2nd year in a row.

Kolkata, 30th September 2022: Licious, India’s most loved meats & seafood brand, is back with the 2nd edition of their Durga Pujo campaign. Popular actor, Parambrata Chattopadhyay, who was the face of the campaign last year too, makes a comeback with his eloquent storytelling in a series of digital films. 

There are few other things that bring the Bengali community closer together than Durga Pujo. It is a celebration of all things decadent with gastronomic delights being at the heart of the indulgent celebration. The campaign brings this sentiment alive by tapping into the rather interesting insight of how the celebration of Pujo revolves around a plethora of choices around dressing up, going out and meeting people. However, when it comes to food the choice is simple- it must be the best, tastiest & the most unforgettable meal experience. And that’s where Licious steps in with its range of delicacies tailor made for the Bengali palette. 

The campaign sees its manifestation not only through the film but also a Kolkata Specials product range, limited edition packaging, kiosks at popular pandals in Kolkata – all evoking that indelible emotion of Aaj hok kobji dubiye khawa.”

Says, Santosh Hegde, VP- Brand, Licious, “Bengalis form one of our largest consumer bases across the country. A curated Pujo offering is but an obvious move for the business. However, the true inspiration of this campaign lies far beyond just the numbers. Licious is a brand made by meat lovers, for meat lovers. We are in the business of cooking up the meatiest meals & the heartiest memories & we find our strongest motivation amongst consumers who resonate with the same love for meat. Our Bengali meats & fish cuts and the RTC dishes have been hugely popular amongst Bengalis & non- Bengalis alike. And what better time to refresh that love than now. 

With this campaign we have truly tried to re-create the multifaceted aspect of festivals- Kolkata special dishes, an extremely detailed packaging and nostalgic storytelling- it has all. And with Parambrata’s charm at the helm, we are hoping this year’s Pujo offering will pass the customers’ taste test.“

The brand also launched digital films across all brand platforms. Priced at INR 269 onwards, Licious Kolkata Specials will also be available across all key markets. Customers can choose from the lip-smacking delicacies of Prawn Cutlet, Mach Bhaja or Fish Fry, Mutton Kosha, Chicken A La Kiev, Crispy Chicken Cutlet and Kolkata Chicken Biryani. One can also hop into the Licious kiosks at Suruchi Sangha, Badamtala Ashar Sangha, Shibmandir, Deshapriya Park, Ballygunj Cultural, Singhi Park to indulge in some quick ‘pet-pujo’ & relish some classic Licious RTC delicacies. 

Please find the link of the films here- 

About Licious:

Founded by Abhay Hanjura and Vivek Gupta, Licious is India’s largest D2C Unicorn, focused at delighting the world with an unmatched range of meat & meat products. Present in raw & fresh meat and seafood, marinades, and ready-to-eat categories, Licious is set to disrupt every food category that needs a meaty intervention! The company is built with a vision to emerge as India’s most loved meat food brand by offering premium quality products.

In a highly underserved market, which is estimated at $40 billion today, Licious as a category-first brand backed by technology, has been able to solve the prevailing customer pain points of quality, hygiene, freshness, and convenience in a sustainable manner. Built on the farm to fork business model, Licious owns the entire back-end supply chain powered by stringent cold chain control to maintain the quality and freshness of each product from the time of procurement, processing, storage to the time it reaches the end consumer.

In just 6 years Licious has witnessed a 300% growth and has served over three million packs of world class meat products to consumers across 28 Indian cities viz, Bangalore, Hyderabad, NCR, Chandigarh, Mumbai, Pune Chennai, Coimbatore, Jaipur, Kochi, Vizag, Vijayawada, Kolkata to name a few. Licious serves over 2mn+ orders every-month with over 85% repeat consumption across markets.

Licious is currently a 6000+ members strong team with employees, across different disciplines and functions.

এবছর রজত জয়ন্তী বর্ষে পদার্পন করলো মাইকেল মধুসূদন পার্ক দুর্গোৎসব

0

নিজস্ব প্রতিনিধি:টালিগঞ্জ করুনাময়ী ঘাট রোডে মাইকেল মধুসূদন পার্ক ওয়েলফেয়ার কমিটির সার্বজনীন দুর্গোৎসবের শুভ উদ্বোধন হয়ে গেল।এবছরের পুজো রজত জয়ন্তী বর্ষ।উদ্বোধনে উপস্থিত ছিলেন নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশনের মহারাজ স্বামী পুরাতনানন্দ ,বোরো চেয়ারম্যান ১১৫ ওয়ার্ডের কাউন্সিলার রত্না সুর।পুজোয় এবারের থিম ‘আমাদের আঙিনা আদিবাসী ঘরণা’।

মাইকেল মধুসূদন পার্ক দুর্গোৎসব কমিটির যুগ্ম সম্পাদিকা প্রাণতি বিশ্বাস ও শ্রাবনী কর্মকার জানালেন,”আমরা আমাদের থিম করেছি আদিবাসী সমাজ ও দর্শনকে সামনে রেখে।এখানে মায়ের মূর্তির ধরণও আমাদের আদিবাসী সম্প্রদায়ের ভাবনা থেকে।”


সভাপতি হারাধন দাস জানালেন,”আমরা পুজোর ২৫তম বর্ষ পূর্তি উপলক্ষে বিভিন্ন সামাজিক কাজকর্মও রাখছি।বেহালা ব্লাইন্ড স্কুলের ৫০জনকে বিভিন্ন প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র তুলে দেওয়া হয়।”


সহ সভাপতি বিপাশা সেন রায় বললেন,”পুজোয় প্রতিদিন বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও থাকছে।পরিবেশন হবে রবি ঠাকুরের ‘চন্ডালিকা’।পরিবেশন হবে সঙ্গীত ও নৃত্য।”

নাইরোবিতে বঙ্গকন্যার ভিন্ন স্বাদে দূর্গোৎসব পালন, কান্ট্রি ক্লাবে অনুষ্ঠান

0

নিজস্ব প্রতিনিধি:অনন্যা পাল, প্রতি বছর চেষ্টা করেন নিজের মত করে তাঁর টিম নিয়ে নাইরোবিতে সাংস্কৃতিক ভাবে শারদিয়া উৎসব পালন করতে, যেখানে অংশগ্রহনকারীরা সর্বভারতীয়। এবারের উৎসব বিশেষ মাত্রা পেয়েছে ইউনেস্কো দূর্গাপূজাকে তালিকাভুক্ত করার ফলে। এই বছর অনন্যা একটি নৃত্যনাট্য ‘দ্য ইথারাল সাগা’ প্রস্তুত করেছিলেন যার কাহিনী কবি জয়দেব ও পদ্মাবতীর প্রেমগাথা ও গীতগোবিন্দ রচনার প্রেক্ষাপটে লেখা হয়েছিল। অনষ্ঠানটি সম্প্রতি মঞ্চস্থ হলো মুথাইগা কান্ট্রি ক্লাবে।

এই ক্লাবটি নাইরোবির সবচেয়ে অভিজাত ক্লাব, যেখানে দর্শকও পুরোপুরি আন্তর্জাতিক। অনুষ্ঠানের কলা কুশলিরাও বহুজাতিক। এই নৃত্যনাট্যটির রচনা ও পরিচালনায় অনন্যা পাল, শ্রেষ্ঠাংশে কৃষ্ণ কিসলে ও সুষমা রেড্ডী। ভাষ্যপাঠে জেমস মুহিয়া (কেনিয়া) ও জননী রাজসেকরন (শ্রীলঙ্কা)।
এছাড়া, ‘আগমনী – দ্য ডিভাইন অ্যারাইভাল’ নামের একটি ভার্চুয়াল অনুষ্ঠান ও তৈরি করেছিলেন অনন্যা, যেটি মহালয়ার দিন প্রচারিত হলো তাঁর নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেল থেকে।

অনুষ্ঠানটির বড় সম্পদ তার গান, যার সুর দিয়েছেন ও গেয়েছেন মুম্বাইবাসী সুরকার ও গায়ক আশীষ চক্রবর্তী। এখানে গীতগোবিন্দের পদকে সেমি ক্লাসিক্যাল আঙ্গিকে গাওয়া হয়েছে, যা শ্রুতিমধুর ও সহজবোধ্য। প্রধান চরিত্রগুলিতে ছিলেন জয়দেবের ভূমিকায় কৃষ্ণ কিসলে ও পদ্মাবতীর ভূমিকায় শ্রদ্ধেয়া ভারতনাট্যম গুরু শ্রীমতী সুষমা রেড্ডি। অনুষ্ঠানের নৃত্য পরিচালনাও সুষমা রেড্ডির। দুটি শিশু শিল্পী, যারা সুষমার ছাত্রী, অনশিতা গর্গ ও ভাইগা গিরিশ যথাক্রমে কৃষ্ণ ও রাধার ভূমিকায় নৃত্য পরিবেশন করেছে। ভাষ্যপাঠে অংশ নিয়েছিলেন জননী রাজসেকরন (শ্রীলঙ্কা) ও জেমস মুহিয়া (কেনিয়া)। নেপথ্যকন্ঠে ছিলেন অনন্যা পাল। অনুষ্ঠানের প্রোডাকশন ম্যানেজার ইন্দিরা সুন্দররমন ও তাঁর সহকারী রাখী কিসলে।

অনন্যা পাল বললেন,” আমি দেশের বাইরে থাকলেও নিজেদের সংস্কৃতি চর্চা থেকে বিরত থাকিনা। এবার আবার ইউনেস্কো এর এই বিশেষ সম্মান দুর্গা পুজোর ঐতিহ্যকে আপামর বাঙালি তথা ভারতীয়দের গর্বের বিষয়। তাই যে দেশেই থাকিনা কেন মনে হলো এই বিশেষ প্রাপ্তিকে উদযাপন করা উচিৎ।কেনিয়াতে থেকেই তাই নিজেদের মতো করে উৎসবে অংশগ্রহণ করলাম।”

“কালো ! ..আমিও মানুষ!!” ছবির নামকরণ অনুষ্ঠান

0

✍️By Special Correspondent
“কালের কালিমা কোমরের কাছে কাঁদুক করুন কষ্ঠে, কলোকেলি কেন কৃষ্ণ কলিরা কাটায় কারাদণ্ডে ….”
আমরা সবাই প্রতিনিয়ত কোথাও না কোথাও না কোথাও এই ‘কথার ‘ কাঁটা তারে আটকে আছি নিজেদের অজান্তেই , সমাজের কিছু কুরুচিপূর্ণ বক্তব্যের জন্য। তবুও বিচার পাচ্ছি কি..? ন্যায়ের দেবী শুনছে কি..? আমারা ভুলে যাই কেটে গেলে রক্ত সবার ঝরে, কষ্ঠে চোখে জল সবার পরে, কালোর শেষে আলো মানুষ নিজেইও গড়ে। আমি ধর্মে কর্মে বর্ণে একজন মানুষ, এটাই আমার প্রথম পরিচয়।


উপরের লেখাগুলো সত্যিই চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছে কুসংস্কারের বেড়াজালে জড়িয়ে আমরা এখনো কতখানি পিছিয়ে আছি। ২৭শে সেপ্টেম্বর ’২২ কলকাতা প্রেস ক্লাবে ঋষিরাজ ফিল্ম প্রেজেন্ট , আদ্যাশ্রী মাহান্তি প্রোডাকশন ফিচার ফিল্মের একটি সত্য ঘটনা অবলম্বনে নির্মিত ছবি “কালো ! ..আমিও মানুষ!!” এর নামকরণ অনুষ্ঠান হয়ে গেল। উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট আইনজীবী Mr. Arun Kumar Mohanty…Senior counsel Gr.- l, Govt. Of India at Calcutta High court. ,(Executive Producer) ADV. Kaberi Sengupta Mohanty ,(Producer) Mr. Rishieraj Ritambhar Mahanty. উপস্থিত ছিলেন Mr. Loknath Chatterjee state convenor bjp legal department. এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ছবির পরিচালক রত্নদীপ ঘোষ , চিত্র পরিচালক রূপাঞ্জন পাল এবং এই ছবির চিত্রনাট্য ও সংলাপ লেখিকা মন্দিরা মুখার্জি প্রমূখ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। বর্ণবৈষম্য থেকে মানুষকে সজাগ করাই এই ছবির মূল উদ্দেশ্য। এই ভিন্ন স্বাদের ছবি নিয়ে আশাবাদী উপস্থিত সকলের সঙ্গে আমরাও। অপেক্ষা শুধু শুটিং ফ্লোরে যাওয়ার। আমাদের শুভেচ্ছা শুভকামনা রইল সকলের জন্য।

ল্যাকমি’র আয়োজনে অনিরুদ্ধ চাকলাদারের মেক আপ-এর মাস্টারক্লাস

    0

    নিজস্ব প্রতিনিধি:নারী সৌন্দর্যের আরো একটি অপরিহার্য এবং গুরুত্বপূর্ণ অংশ হলো তাদের মেকআপ। সেই মেকআপ যত সুন্দর হবে নারী তত বেশি আকর্ষণীয় এবং সুন্দর হয়ে উঠবে। তাই পোশাকের পাশাপাশি নারীদের ক্ষেত্রে মেকআপ একটা বড় অংশ জুড়ে থাকে। আর দুর্গা পুজো মানেই নিখাদ আনন্দ এবং অপরিসীম সাজগোজ। আর সেই দিকটির কথা মাথায় রেখেই ল্যাকমি’র উদ্যোগ আয়োজিত হয়ে গেল এক মেকআপ সেশন। যেখানে বিশিষ্ট এবং স্বনামধন্য মেকআপ আর্টিস্ট অনিরুদ্ধ চাকলাদার স্বয়ং উপস্থিত হয়েছিলেন মেকআপ করাবার জন্য। সাধারণত সিনেমা বা টেলিভিশনের তারকাদেরকে ই অনিরুদ্ধ চাকলাদার তার তুলির টানে সাজিয়ে তোলেন। কিন্তু যেহেতু অনিরুদ্ধ চাকলাদার মতন বিশিষ্ট মেকআপ আর্টিস্ট সেই ১৯৯৬ সাল থেকে ল্যাকমির সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন তাই তিনি সারা না দিয়ে পারিনি। তাই কলকাতার নিউ মার্কেট চত্বর এর গোল ঘরে আগত বেশকিছু সাধারণ মহিলাদেরকে মেকাপের মাধ্যমে আরো বেশি প্রাণবন্ত এবং সুন্দর করে তোলেন। ল্যাকমি আয়োজিত একদিন ব্যাপী এই অনুষ্ঠানের এদিনের মূল আকর্ষণ অবশ্যই ছিলেন অনিরুদ্ধ চাকলাদার, আর তার হাতে জাদু ছোঁয়া পেতে অনেক সাধারণ মহিলা রাই উপস্থিত হয়েছিলেন।

    সুমন কল্যাণের প্রথম মৌলিক বাংলা গান “ঢ্যাংকুরাকুর বাদ্যি বাজে…”র আনুষ্ঠানিক প্রকাশ

    0

    নিজস্ব প্রতিনিধি:কন্ঠশিল্পী সুমন কল্যাণের প্রথম মৌলিক বাংলা গান “ঢ্যাংকুরাকুর বাদ্যি বাজে…”র আনুষ্ঠানিক প্রকাশ পেল কলকাতা প্রেস ক্লাবে। শ্রোতাদের ভরিয়ে দিলেন সঙ্গীতের জাদুতে। সুর করেছেন বাপ্পা অরিন্দম।

    আর গীতরচনা বেথুন বেরার। বাঙালির জন্য উৎসর্গ করা একটি গান যাতে আছে আনন্দের রামধনু রঙ। সুমন কল্যাণ এর আগেও মাতিয়েছেন বহু মঞ্চ। কিশোরকুমার, আর ডি বর্মণ, বিনোদ রাঠোর আর কে কে-র অসাধারণ সব গানে। বছরের পর বছর তিনি পারফর্ম করছেন অসাধারণ দক্ষতায়। গানটির রেকর্ডিং, মিক্সিং আর মাস্টারিং ACE MEDIAA WORKS-এর। অভিনয়ে আছেন সুমন কল্যাণ আর রূপসা সাহা। সঙ্গে আছেন স্বাতী রায়,সৃঞ্জয় পোদ্দার, ঈশানী রায়, সায়ন দে, দেশবন্ধু মন্ডল, সৌপর্ণ সাহা এবং অন্যরা। ক্যামেরা এবং পরিচালনা বাপ্পা অরিন্দমের‌। ক্যামেরায় সহায়তা করেছেন মুশারফ হোসেন। সেকেন্ড ক্যামেরাম্যান দিব্যেন্দু চন্দ্র। প্রধান সহকারী পরিচালক অতনু মন্ডল‌। শিল্প পরিচালনা R. CH, SANJU-র। প্রোডাকশন কন্ট্রোলার স্বাতী রায়। এক্সিকিউটিভ প্রোডিউসার শ্যাম সর্দার। প্রোডাকশন ম্যানেজার মৃত্যুঞ্জয় দাস। মেক আপ অচিন্ত্য গাঙ্গুলী এবং বিশ্বজিৎ চক্রবর্তীর। হেয়ার স্টাইল পিয়ালী রায় এবং সোনালী রায়ের। এডিট এবং কালার জয়ন্ত রায়ের। পোস্ট প্রোডাকশন ACE MEDIAA WORKS-এর। লাইট সাপ্লায়ার অশোক ঘোষ। জেনারেটর অ্যান্ড পাওয়ার সাপ্লাই ESKAY POWER-এর। লোকেশন হল মেজো বাড়ি (শখের বাজার)।মিউজিক ভিডিওটিতে ১৩২ জনের টিম ছিল।


    প্রেস ক্লাবে মিউজিক ভিডিওর আনুষ্ঠানিক প্রকাশ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পরিচালক রেশমি মিত্র, গীতিকার গৌতম সুস্মিত ,বাপ্পা অরিন্দম, সুমন কল্যাণ সহ পুর ইউনিট।

    East Bengal FC Unveils Team Jerseys For ISL Season 9 (2022 – 23)

    0

    For ISL Season 9 (2022 – 23)

    • Home, Away, Third & Technical Jerseys
    • Unveiled Amidst Star-Studded Event At A Kolkata Puja Pandal

    Kolkata, 29th September, 2022: The Team Jerseys for ISL Season 9 (2022-23) of East Bengal FC were unveiled today at Rajdanga Naba Uday Sangha, a local Durga Puja ground in the presence of eminent dignitaries, marquee East Bengal players, select players of the East Bengal ISL Team and its Head Coach.

    The Home, Away and the Third jerseys were presented by VP Suhair, Cleiton Silva & Souvik Chakrabarti.

    Given that East Bengal FC has a very strong emotional connect with the people of Bengal, the unveiling of the Team’s ISL jerseys amidst Bengal’s biggest cultural festival – Durga Puja was a step to reach out to the football lovers in a celebratory environment. With UNESCO attributing Durga Puja as the Intangible Cultural Heritage of Humanity, this year the celebrations are even bigger and hence an apt platform to highlight the distinct themes and stories of behind making of each of the new Jerseys.

    The veteran footballers of the club wearing their own jerseys from their glorious past handed over the Club’s flag in a symbolic gesture of passing on their legacy to the current players, as each of the Jerseys were unveiled along with the story behind the threads.

    Jersey Themes 0f 2022:

    The Home kit is a re-creation of the 1996 jersey when Emami was the principal sponsor of the East Bengal Club and the team experienced a glorious tenure. This re-creation of that yesteryear jersey design aims to infuse the energy of that winning streak in the team with Emami Group now becoming the primary investor of the Club.

    The Away kit is a symbolic gesture of respect and acknowledgment to all the stars and trophies won by the Club in its centenarian legacy. The clean star-spangled white jersey will ensure the club stands out strongly while playing away games.

    The Third kit represents what sets the team apart. The passion & fire that burns within to achieve the best and the hand that nurtures this fire creates a distinct identity of the Club.

    The blue and white jersey with the self-design of the “Mashaal” (“hand with the torch”) symbol in its self-design print stands apart in its look and feel.

    The Coach and technical Jersey was unveiled by Actor, Parambrata Chatterjee and Team Head Coach, Stephen Constantine.

    The occasion was also graced by Mr Javed Ahmed Khan, Hon’ble Minister for Disaster Management, Government Of West Bengal, Mr Susanta Ghosh, Chairman, Borough XIII, Legacy Legends Players, Manoranjan Bhattacharjee, Bhaskar Ganguly & Mihir Bose, Actors, Mr Neel Bhattacharya & Ms Trina Saha, Mr Sandeep Agrawal and Debabrata Sarkar- Directors, Emami East Bengal, Dr. Shantiranjan Dasgupta- member East Bengal Club, and Ms Namrata Parekh, CEO, Emami East Bengal along with Olympians, Ms Poulami Ghatak & Ms Dola Dola Banerjee and Padmasree, Ms Bula Chowdhury.

    Following the unveiling of the Season kit, the dignitaries present along with the East Bengal FC players and representatives visited the uniquely decorated pandal to take the blessings of Maa Durga.

    The team will play their first game of ISL 2022 – 23 as East Bengal FC in their Away Kits on 7th October, 2022 in Kochi and in their Home Kits on 12th October, 2022 in Kolkata. The tickets for the season will be launched over the next few days.

    An Ode to the Flavours of Bengal: ‘Sharoder Swad’, a Pujo Season Delight, now on FreshtoHome

    0


    ● FreshtoHome pays a tribute to Bengali cuisine- local delicacies like Doi Shorshe Chingri Jhaal, Panch Phoran Chicken Curry, Mangsher Chop, Breaded Fish Finger, among various others products now available on the app
    ● Chefs with rich hands-on experience in serving Bengali cuisine join hands to enable the launch of Pujo season special ‘Sharoder Swad’
    29 September 2022, Kolkata: This Durga Pujo, FreshtoHome, the world’s largest fully integrated meat and seafood e-commerce platform, has enabled the launch of ‘Sharoder Swad’, an exclusive range of ready-to-cook products curated for this festival season.
    Pujo, the grandest festival of West Bengal, is an intangible cultural heritage. Celebrating this season, and in a bid to add wholesome taste and safe snacking alternatives, FreshtoHome has enabled its partner vendors to exclusively curate a delectable array of local Bengali delicacies that will be available on the FreshToHome app for a limited time period.
    Drawing inspiration from local cuisines and taste preferences of meat lovers who enjoy Bengali cuisine, the ‘Sharoder Swad’ has been crafted with ‘100% Fresh, 0% Chemical’ products. The range consists of 3 ready-to-cook categories – celebrating authentic Bengali disheslike-Doi Shorshe Chingri Jhaal, Panch Phoran Chicken Curry, Mangsher Chop, among others; Oriental dishes like, Teriyaki Stir Fry, Chilli Chicken, and the likes; and Kebabs & Tikkas including, Mutton Galouti Kebab, Mutton Shami Kebab, Peshawari Mutton Chapli Kebab, among others.
    A wide variety of SKUs, cuts, and ready-to-cook products have been crafted to meet the meat demands of food lovers in Kolkata.
    Speaking about the launch of the ‘Sharoder Swad’,Shan Kadavil, Co-Founder, FreshtoHome, said, “Kolkata proudly celebrates its culture, traditions, and food. The city’s unfettered enthusiasm towards good food is inspiring, and we were eager to pay a tribute to the city that famously enjoys its local delicacies. So this festive season, we have taken a hyper-local route in Kolkata by enabling the launch of the ‘Sharoder Swad’, a Pujo range of ready-to-cook products.”
    Furthermore, FreshtoHome has recently enabled the launch of Signature Snacks, India’s first clean label range. The Signature Snacks do not contain preservatives like nitrate, phosphate, and E-number additives that are most commonly found in frozen products. Instead, preservatives are replaced with organic components, a rare first for any meat brand, ensuring that the Signature Snacks are safe for the consumption of all.
    Sharing insights on the Signature Snacks, Shan said, “Growing awareness in consumers has been key to the success of the Clean Label snacks. For decades, as consumers, we had to choose preservative-laden products due to the lack of alternatives or as a result of the hazards of consuming preservative-laden products being carefully hidden from customers. Hence, making an informed purchase about frozen products was not an easy task for the common consumer. I am happy that FreshToHome has been a key enabler in making a breakthrough in this segment, and customers of every age group can now relish ready-to-cook products being fully aware that they are consuming the safest food.”
    Competitively priced, the Signature Snacks range starts at Rs. 125 per packet. Customers in Kolkata can get these products delivered in less than 90 minutes through Express Delivery.
    Launched in 2015, FreshToHome is among the world’s favorite destinations for fresh, chemical-free fish, seafood, and meat and has over 2500+ varieties of products that can be conveniently ordered through the brand’s mobile app or the website. The platform offers a range of fish, poultry, seafood, goat, and lamb along with its ready-to-cook assortment.
    FreshToHome’s technology-enabled platform, Commodities Exchange, empowers fishermen and farmers to auction their produce to vendors who sell on www.FreshToHome.com electronically. This process eliminates intermediaries and ensures that the customers get the best products within 24 – 36 hours of sourcing. Additionally, an end-to-end cold supply and 100+ quality checks for standard chemicals, antibiotics, and preservatives, make FreshToHome the most reliable brand for the freshest fish and meat.