প্রকাশ পেল “মুঠোফোনের ৩০০”

নিজস্ব প্রতিনিধি:সোনাঝুরি এবং আম্রকুঞ্জ মুক্তমঞ্চে এ মাসের ১ তারিখ থেকে ৪ তারিখ পর্যন্ত চলবে পৌষ মেলার সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। আয়োজন করেছেন নলেজ সিটি কর্তৃপক্ষ, উস্তি, দক্ষিণ ২৪ পরগনা। একেবারেই শান্তিনিকেতন এর আদলে তৈরি এই শিক্ষণ কেন্দ্রটি নিঃসন্দেহে সাধারন মানুষের মনে নতুন করে শিক্ষা গ্রহণ এবং বাঁচার রসদ দেবে।

২ জানুয়ারি সোনাঝুরি মুক্তমঞ্চে আত্মপ্রকাশ করল একালের সর্বপ্রথম মোবাইল ফোনের জন্য বিশেষভাবে লেখা চার লাইনের ছড়া। লেখক ডা. চন্দ্রগুপ্ত জানালেন এই বইটির মূল্য মাত্র ১৫ টাকা। এই ১৫ টাকার বিনিময়ে পাঠক-পাঠিকা এবং মোবাইল প্রেমীরা বছরের ৩০০ দিনের জন্য নিশ্চিন্ত থাকবেন এই ভেবে যে তাদের প্রিয়জনদের শুভেচ্ছাবার্তা, মনের আবেগ তারা এইখান থেকে স্ক্রিনশট নিয়ে পাঠাতে পারবেন।

এদিন সোনাঝুরি মুক্তমঞ্চে কলকাতার টালিগঞ্জ অতন্দ্র সাহিত্য সংসদকে নিয়ে হাজির হয়েছিলেন কর্ণধার সাহিত্যিক বরুণ চক্রবর্তী। উপস্থিত ছিলেন প্রাক্তন পুলিশকর্তা অরিন্দম আচার্য। নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর একজন মন্ত্রমুগ্ধ এই প্রাক্তন পুলিশ কর্তা আলোচনা করলেন নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর অন্তর্ধান থেকে তাকে নিয়ে চলতে থাকে বিভিন্ন কথা। গান-কবিতায়-আলোচনায় কয়েক ঘণ্টার জন্য মঞ্চ মাতিয়ে রেখেছিল অতন্দ্র পথ সাহিত্য সংসদের সদস্য-সদস্যারা এবং তার কর্ণধার বরুণ চক্রবর্তী। সংগীতে মিতালী সিকদার, কমল হালদার, তারকনাথ সাহা, ঝিমলি চক্রবর্তী, আবৃত্তি পাঠ সর্বানি চাটার্জী, মাউথ অর্গান বাজিয়ে মন ভোলালেন অরিন্দম আচার্য, স্বরচিত কবিতা পাঠ দীপশিখা চৌধুরী।
পরিশেষে যেটা না বললেই নয়, ডঃ আব্দুর রউফ যে অসামান্য দক্ষতা এবং যত্নে এই শিক্ষা নগরী তৈরি করেছেন, পৌষ মেলার আয়োজন করেছেন তাকে ধন্যবাদ দিয়ে কোন ভাবে ছোট করা যাবেনা, এক কথায় অভূতপূর্ব।

admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *