দক্ষিণ কলকাতা কলাকুশলীর নাট্য আলোচনা সভা

0
33


নিজস্ব প্রতিনিধি: ১লা আগস্ট দক্ষিণ কলকাতা কলাকুশলী আয়োজিত নাট্য আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হল তপন থিয়েটার কনফারেন্স হলে। আলোচ্য বিষয় ছিল – বাংলা নাটকের ভবিষৎ ও বর্তমান প্রজন্মের কাছে নাটকের গ্রহণযোগ্যতা । উক্ত সভায় অতিথি বক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সনামধন্য নাট্যকার ও পরিচালক উজ্জ্বল চট্টোপাধ্যায় ও থিয়েটার সমালোচক এবং চলচ্চিত্র নির্মাতা ও নির্দেশক শান্তনু সাহা । সভার শুরুতে সংস্থার সাধারণ সম্পাদক শ্রী সুদর্শন দাস এই আলোচনা সভার উদ্দেশ্য ও উপকারিতা সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য পেশ করেন । সংস্থার পক্ষ থেকে দুই অতিথি বক্তাদের সংবর্ধনা প্রদান করে আলোচনা সভার মূল পর্ব শুরু হয় । প্রথম বক্তা হিসাবে শান্তনু সাহা তার সুদীর্ঘ বক্তব্য বলেন । এই দীর্ঘ সময়ের মধ্যে অনেক সময় নাটকের উত্থান পতন ঘটেছে বিভিন্ন সামাজিক ও প্রাকৃতিক কারণে তা যুদ্ধই হোক বা মহামারী । কিন্তু নাটকের গতি কখনো থেমে থাকেনি । ব্যক্তিগত আর্থিক উন্নয়নের জন্য হয়তো কেউ কেউ বিকল্প পথ বেছে নিয়েছেন তাতে হয়তো বা নাটকের গতি খানিকটা শ্লথ হয়েছে কিন্তু নব উদ্দ্যোগী মানুষের প্রচেষ্টায় আবার সেই খামতি পূরণ হয়েছে । কিন্তু তিনি আশাবাদী বাংলা নাটকের উজ্জ্বল ভবিষৎ নিয়ে ।
প্রধান বক্তা হিসাবে বিশিষ্ট নাট্যকার উজ্জ্বল চট্টোপাধ্যায় বলেন – বর্তমান সময়ে দাঁড়িয়ে বাংলা নাটকের ভবিষৎ কি সেটা বলা খুব কঠিন তবে আর্থিক উন্নয়নের স্বার্থে বিকল্প সাংস্কৃতিক ভাবনা ও ঝোঁক নাটকের গতিকে খানিকটা শ্লথ করতে পারে ।
নব প্রজন্ম যে নাটক থেকে মুখ ঘুরিয়ে নিয়েছে সেটাও বলা যাবে না । বহু দলে অনেক প্রযোজনা আছে সেখানে কচি – কাঁচাদের আধিক্যই বেশী । আসলে বর্তমান প্রজন্মের সন্মুখে সারা দুনিয়ার নাট্য জগত এবং তারা তুল্যমূল্য বিচারে অনেক বেশী পারদর্শী । তবে তাদের ভাবনা আমরা যদি আমাদের প্রযোজনার মধ্য দিয়ে স্পর্শ করতে পারি তবে নিশ্চয়ই তারা নাটকে এগিয়ে আসবে ।
পূর্ণ দর্শকবেষ্টিত সভাঘরে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন অতিথি বক্তারা । দর্শকরাও বিষয় ভিত্তিক আলোচনার মাধ্যমে তাদের মতামত ব্যক্ত করেন এবং পরিতৃপ্ত হন ।
সবশেষে সঞ্চালক ড: সৌরভ চন্দ্র বলেন – আমরা নাটককে এগিয়ে নিয়ে যেতে বদ্ধপরিকর । নাটকের মধ্যে দিয়ে আমাদের ভাবনার প্রকাশ ঘটুক এই আমাদের উদ্দেশ্য ।
দক্ষিণ কলকাতা কলাকুশলী নাট্য জগতে একটি পরিচিত নাম । বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এবং নাটক মঞ্চায়নের মাধ্যমে সংস্কৃতি চেতনা জাগিয়ে তোলার যে প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে তা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি ঘটুক এই আমরা আশা করি ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here