google-site-verification=3aWTtnJLDmziNXnTRHYjTuuhcCjdWHLf0r3nb02M4_Q তুমি রবে নিরবে - রনি রায়-কে রামকৃষ্ণপুর বর্ণালী সংঘের শ্রদ্ধাঞ্জলী google-site-verification=3aWTtnJLDmziNXnTRHYjTuuhcCjdWHLf0r3nb02M4_Q
Anando Sangbad Live

তুমি রবে নিরবে – রনি রায়-কে রামকৃষ্ণপুর বর্ণালী সংঘের শ্রদ্ধাঞ্জলী

✍️স্বর্ণালী ঘোষ

“অমন আড়াল দিয়ে লুকিয়ে গেলে চলবে না,,
এবার হৃদয় মাঝে লুকিয়ে বোসো,কেউ জানবেনা,কেউ বলবেন।।”– রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

মৃত্যু জীবনের এক অমোঘ সত্য।কালের নিয়মে চলে যেতে হয় সবাইকেই।কিন্তু এই চলে যাওয়া তো শুধু শরীর নামক খোলসটির পরিবর্তন।রবী ঠাকুর বলেছিলেন,’আমি মৃত্যুর চেয়ে বড়ো, এই কথা বলে যাব আমি চলে’,_————
ঠিক এমনই এক মানুষ ছিলেন শ্রী রনজয় রায়।পেশাগত ভাবে যিনি একজন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন চিত্রসাংবাদিক।যিনি পরিজন সূত্রে বা কর্মসূত্রে সবার প্রিয় ‘রনি দা’।

সেই রনি দা অকালে চলে গেলেন।তাঁর এই চলে যাওয়া তাঁর পরিজন,তাঁর কর্মজগতের সবার কাছে সত্যিই এক ইন্দ্রপতন। হ্যাঁ, শরীর নামক খোলসটি তিনি পরিবর্তন করেছেন কালের নিয়মে ঠিকই,কিন্তু তাঁর পরিজন,বন্ধুবান্ধব,সহকর্মীদের স্মৃতিতে তাদের প্রিয় রনিদা অমর হয়ে থাকবেন চিরদিন।শ্রদ্ধায়,ভালোবাসায়,সুখ-স্মৃতিতে সবার মনে আজীবন উজ্জ্বল হয়ে থাকবেন চিত্র সাংবাদিক শ্রী রণজয় রায়।

সবার প্রিয় রনি দা র স্মৃতি তে গত ২১ শে ফেব্রুয়ারি ২০২১,আন্তর্জাতিক ভাষা দিবসের দিনে বারাসাতের রামকৃষ্ণপুর বর্নালী সংঘের পরিচালনায় স্বর্গীয় শ্রী সুশীল কুমার সাহা র স্মৃতি তে এবং স্বর্গীয় শ্রী রনজয় রায় নামাঙ্কিত মঞ্চে এক দিবা রাত্রি ফুটবল টুর্নামেন্ট ও সাংস্কৃতিক সন্ধ্যার আয়োজন করা হয়েছিল।এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রণজয় রায় এর ভাই শ্রী মৃত্যুঞ্জয় রায়।ভারতীয় দলের স্বনামধন্য ফুটবল খেলোয়াড় শ্রী হুসেন মুস্তাফি।এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন রূপোলি পর্দার বেশ কিছু গুণিজন।প্রখ্যাত প্রয়োজক ও কালাকার অ্যাওয়ার্ডস এর ভাইস চেয়ারম্যান শ্রী হেমন্ত মর্দা।বলিউড প্রযোজক ও সিনিয়র সাংবাদিক শ্রী অয়নজিত সেন।প্রখ্যাত সুরকার ও পরিচালক শ্রী অভিষেক বসু। প্রখ্যাত ফ্যাশন ডিজাইনার শ্রী তেজষ গান্ধী।খ্যাতনামা অভিনেত্রী শ্রীমতি শিউলি রামানি গোমস।টিয়াজু ফার্মাসিউটিক্যালসের এর জোনাল হেড শ্রী অঞ্জন চৌধুরী।

এছাড়াও যাদের উজ্জ্বল উপস্থিতি ‘রণজয় রায় ‘ নামাঙ্কিত এই মঞ্চকে আলোকিত করেছিল তারা হলেন রনি দা র দীর্ঘদিনের সহকর্মীরা।উপস্থিত ছিলেন রনিদার দীর্ঘদিন এর বন্ধু সাংবাদিক শ্রী সুবোধ মল্লিক।বর্ষিয়ান সাংবাদিক শ্রী সত্যজিৎ চক্রবর্তী।চিত্র সাংবাদিক শ্রী অভিজিৎ ভট্টাচার্য, চিত্র সাংবাদিক শ্রী স্বপন মাহাত।এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন চিত্র সাংবাদিক শ্রীমতি নীলাঞ্জনা চ্যাটার্জি, চিত্র সাংবাদিক শ্রীমতি প্রিয়ানা চক্রবর্তী।

প্রদীপ প্রজ্জ্বলন ও নীরবতা পালনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করেন গুণিজনেরা।এরপরে ক্লাব সদস্য দের দ্বারা অনুষ্ঠিত হয় গুণিজন দের সম্মান প্রদান।এই অনুষ্ঠানে বিশেষ আকর্ষনের বিষয় ছিল মহিলাদের প্রীতি ম্যাচ।এরপর ই শুরু হয় মূল প্রতিযোগিতা। মোট ১৬ টি টিমের মধ্যে এই প্রতিযোগিতা হয়।

কাছারি মাঠ মর্ণিং, রাজারহাট নিউটাউন
লক্ষ্মী বিল্ডার্স,ডি.এস.এন্টারপ্রাইজ
সমীর এন্টারপ্রাইজ, ফুটবল ফ্যান ক্লাব
ব্লু টাইগার,নবারুন সংঘ
ড্রাগন এফ সি,আরবান এন্টারপ্রাইজ
অল ফ্রেন্ডস,নবোদয় সংঘ নিউ খেলাঘর সুপার সিক্স,মা তারা এন্টারপ্রাইজ
ডি আর এস সি,কালিকাপুর আল্ট্রা মেরিনার্সহা ড্ডাহাড্ডি লড়াই এর পর সেরার সেরা পুরষ্কার টি জিতে নেন কালিকাপুর আল্ট্রা মেরিনার্স ক্লাব।রনিদা নামাঙ্কিত সেরা খেলোয়াড় পুরষ্কার পান কালিকাপুর আল্ট্রা মেরিনার্স এর এক খেলোয়াড় শ্রী প্রীতম বিশ্বাস।রানার্স আপ এর পুরষ্কার পান অল ফ্রেন্ডস ক্লাব।

সবশেষে যাদের অক্লান্ত পরিশ্রম না থাকলে এই দিনটি এত সুন্দর ভাবে উপস্থাপিত হতই না, তারা হলেন বর্নালী সংঘ ক্লাবের সভাপতি শ্রী কালিপদ সাহা।বর্নালী সংঘ ক্লাবের সেক্রেটারি শ্রী পরিমল বসু,ও সমস্ত ক্লাব সদস্যরা।

আর সবার অলক্ষ্যে মাঠের একধারে হাসিমুখে ক্যামেরা হাতে উপস্থিত ছিলেন শ্রী রণজয় রায় স্বয়ং।মৃত্যুর এত ক্ষমতা কোথায়??মৃত্যুকে হারিয়ে দিল রনিদার পরিজনদের ভালোবাসা,বন্ধুবান্ধবদের স্নেহ আর সহকর্মীদের শ্রদ্ধা। যেখানেই থাকুন খুব ভালো থাকবেন রনিদা।ভবিষ্যতের জন্য আবার ক্যামেরা হাতে প্রস্তুত হতে হবে যে।


আপনার প্রিয়জনেরা তো এই বিশ্বাসেই বুক বাঁধছে,,

“আবার কোনদিন কলকাত শহরের বাসে কিংবা ট্রামে,,
তোমার আমার দেখা হবে অন্য কোনো নামে।।”

ছবি:বিশ্বজিত সাহা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *